প্রথম পর্বের পর আজ ২য় পর্ব নিয়ে হাজির হলাম…. আমাদের প্রথম পর্ব দেখতে চাইলে এখানে ক্লিক করুন—

কি কাজ শিখবেন?

অনলাইনে কাজ করতে হলে কাজ আপনাকে শিখতেই হবে। কাজ না শিখে আপনি আয় করতে পারবেন না। যদিও কিছু অল্প সাইট আছে যারা কাজ দেয়।  কিন্তু সেগুলা পারমানেন্ট কোন সমাধান নয়। বরং ওই সকষ সাইটে কাজ করতে ‍গিয়ে আপনি কিছুদিন পরে বিরক্ত হয়ে যাবেন এবং আপনি ওই সাইট ত্যাগ করবেন কিন্তু ডলার তুলতে পারবেন না। কারন ওদের মিনিমাম ১০ ডলার এর মতো ক্যাশআউট লিমিট থাকে। কাজই ১০ ডলার হওয়ার আগেই আপনি ওই সাইট ত্যাগ করবেন ফলে আপার সকল পরিশ্রম বৃতা যাবে। তাহলে এবার আশুন আসল আলোচনায় কি কাজ শিখবেন তা ঠিক করতে গেলে আপনাকে ভাবতে হবে আপনি কি কাজ শিখতে চান। আপনার জন্য কোনটি ভালো এবং আপনার জন্য কোন কাজ টি  করতে ইন্টারেষ্টেড?  তবে এক্ষেত্রে কিছু টিপস ফলো করা ভালো। সেগুলো জানার আগে চলুন আমরা জেনে নেই অনলাইনের আয়ের জন্য ঠিক কিকি কাজ কয়েছে।

কিকি  কাজ  রয়েছে

অনলাইনে আয় করার জন্য রয়েছে নানা উপায় তার মধ্যে সেরা উপায় হলো ফ্রিল্যান্সিং করা। তবে ফ্রীল্যান্সিং কিন্ত কোন কাজের নাম নয়। এটা কাজের একটা সিস্টেম বা কাজ করার একটিা পদ্ধতি। সহজ কথায় বলতে গেলে, ফ্রীল্যান্সিংহলো স্বাধীন কাজের পেশা ।

এখানে পৃথিবীর নানা প্রন্ত থেকে কাজ দাতা এবং কাজ গ্রহীতা আসে। কাজ দাতা কাজ দেয় এবং কাজ গ্রহীতারা কাজ কাজ দাতাদের কাছ থেকে কাজ নয়ে কাজ করে থকে। কাজ শেষ হলে ওই কাজ দাতা তার কাজের জন্য যে রেট ঠিক করেছিলো তা পরিশোধ করে দেয়। আর এভাবেই চলে ফ্রীল্যান্সিং প্রসস। আর এই কাজ দাতাদের পাওয়া যায় কিভিন্ন ফ্রীল্যান্সিং সাইট যেমন আপওয়ার্ক, ফ্রীল্যান্সার, ইল্যান্স ইত্যাদি ওয়েবসাইটে। এই সকল সাইট কাজ করতে হলে আপাকেকাজ গ্রহীতা বা ওয়ার্কার হিসেবে একটি অ্যাকাইন্ট খুলতে হবে। তারপরে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে কাজের জন্য আবেদন করতে হবে। এখানে রয়েছে নানান ধরনের কাজ। তো চলুন দেখেনেই কিকি ধরনের কাজ রয়েছে এই ফ্রীল্যান্সিং সাইটে।

ডাটা এন্ট্রি (যেমনঃ আর্টিকেল রাইটিং, ভাষা অনুবাদ ইত্যাদি।)

এসইও (প্রচুর পরিমানে কাজ রয়েছে সেইও এর।)

ওয়েব ডিজাইন (অনেক কাজ পাওয়া যায় তবে কাজ একটু জটিল)

মার্কেটিং ( এফিলিয়েট মার্কেটিং, ই-মেইল মার্কেটিং ইত্যাদি)

ডিজাইন (গ্রাফিক্স ডিজাইন, লোগো ডিজাইন ইত্যাদি।)

এডিটিং ( ভিডিও এডিট,  এনিমেশন, ৩ডি, ২ডি ইত্যাদি।)

উপরে ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসের প্রধান অংশ সমূহ নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। এছাড়াও আরো অনেক টুকিটাকি কাজ থাকে ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটে।

ডাটা এন্ট্রিঃ উপরের কাজগুলোর মধ্যে সবচেছে সোজা হলো ডাটা এন্ট্রি কাজ। নুতুন অবস্থায় আপনি এটি করতে পারেন। কিন্তু এতে রয়েছে অনেক সমস্যা । যেমন- এটার কাজ সহজ তাই আপনার আমার মতো অনেকেই আছেন যারা এন্ট্রি কাজ করতে চায়। ফলে দেখা গেছে এই সেক্টরে কাজএর কম্টটিশন হাই তাই নুতুনদের নকাজ পওয়া অনেক কঠিন হয়ে দাড়ায়। আবার এই সেক্টরে পুরাতনরা তো আছেন ই। তাই নুতুন অবস্থায় আপনার কাজ পাওয়ার সম্ভবনা ১৫ % এ নিচে। ফলে নুতুন অবস্থায় এই খাতে হাত না দেওয়ই ভালো।

দেখেনিন বর্তমানে ডাটা এন্ট্রি সেক্টরে কি পরিমান কাজ রয়েছে।

ইমেজ  (দেখেনিন বর্তমানে ডাটা এন্ট্রি সেক্টরে কি পরিমান কাজ রয়েছে। )

এবার দেখুন একটি কাজ করার জন্য কতজন আবেদন করেছেন।

ইমেজ (এবার দেখুন একটি কাজ করার জন্য কতজন আবেদন করেছেন।)

কাজেই এখন নিশ্চয় বুঝতে পারছেন যে, নুতুন অবস্থায় এই ২০৭ জনকে পেছেনে ফেলে কাজ পওয়া এতা সহজ হবে না।

এসইওঃ ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসের এক অতি বিশাল অংশ জুরে রয়েছে এসইও।। এর প্রায় ১০-১৫ হাজার কাজ। সবসময়ই থাকে। আর এসইও এর সবচেয়ে বড় যেই প্লাসপয়েন্টপ সেটি হলো এর কাজ গুলো অনেক সোজা এবং মানসম্মত। মানে এর কাজ শিখতে আপনার ১৫-২০ দিনের বেশি সময় লাগবে না। অপর দিকে আপনি একটু ট্রিক খাটিয়ে কাজ পেয়ে যেতে পারেন। এখানে নুতুনদের উপযোগি অনেক কাজ রয়েছে। আপনি নিজে ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসের সাইটিগুলো ভিজিট করলেই দেখতে পাবেন।

ইমেজ (ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসের সাইটিগুলো)

এবার চলুন দেখে নেই,সাধারণত কত জন আবেদন করে একটি কাজের জন্য এটা কিন্তু গড় হিসাব কম বেশি হতে।।

((ইমেজ) কাজের বিট এর বিবরণ বিড এর বিবরণ

উপরে চিত্রে আমরা দেখছি ৫৭ জন আবেদন করেছেন একটা কাজে নতুনরা অল্প পরিশ্রম করলেই  কাজ পেয়ে যেতে পারেন।।

ওয়েব ডেভেলপমেন্টঃ

অনলাইনের আর একটি বিশাল দুনিয়া জুড়ে রয়েছে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট ওয়েবসাইট ডিজাইন । psd 2 এইচটিএমএল, সিএসএস, জাভাস্ক্রিপ্ট, পিএইচপি স্লাইডার ,ইত্যাদি বিভিন্ন কাজ রয়েছে এই সেক্টরে। নতুনরা চাইলে এই কাজ শিখে কাজে বিড করতে পারেন । কিন্তু অনেকেই শুরুতে বুঝতে পারেন না কারণ এসইও এর তুলনা এই কাজগুলো অপেক্ষাকৃত কঠিন তবে একটু চেষ্টা করলে সম্ভব নয়।

ডিজাইনঃ

অনলাইনে তথ্য ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে বিভিন্ন ডিজাইন। যেমন লোগো ডিজাইন, গ্রাফিক ডিজাইন, বিজনেস কার্ড ডিজাইন, পিএইচপি ডিজাইন তৈরি, ইত্যাদি এর অনেক কাজ পাওয়া যায়।তবে আপনার যদি বিশেষ ক্রিয়েটিভিটি না থাকে তবে এই খাতে কাজ না করাই উত্তম।কারণ আঁকা আঁকি করার ক্রিয়েটিভিটি কিন্তু অনেকটাই আল্লাহ প্রদত্ত জিনিস তবে কঠোর সাধনা করলে এটা অসম্ভব কিছুই না। আপনি হয়ে উঠতে পারেন অন্যতম সেরা ডিজাইনার।এছাড়া রয়েছে নানান ধরনের কাজ যেমন এড পোস্টিং এর কাজ তবে এইসব কাজে চেনা কারো সহায়তা থাকলে অনেক ভালো হয়।

তাহলে এবার তো কার সম্পর্কে আইডিয়া পেলেন কি সিদ্ধান্ত নিলেন কি কাজ শিখবেন???

এবার কাজ শেখার ব্যাপারে আমার কিছু পরামর্র্শ

নতুনদের জন্য আমি আপনাদের এসসিও দিয়ে শুরু করার পরামর্শ দিতে চাই। কারণ এটি সোজা এবং অনলাইন এর উপর খুব অল্প জ্ঞান নিয়ে যে কেউ এর কাজ করে আয় করতে পারে ।এর মধ্যে রয়েছে অন পেজ অপটিমাইজেশন ব্যাকলিংক বিভিন্ন কাঙ্খিত ফলাফল অর্জন সহ আরও বিভিন্ন ধরনের কাজ এই কাজ গুলো আপনারা সহজেই রক্ত করতে পারবেন । এবং আয় করতে পারবেন । নতুনরা কাজ ও পাবেন তাড়াতাড়ি আর সবচেয়ে বড় যে সুবিধাটি রয়েছে এই সেক্টরে এখানে পার্সোনাল হেল্প সংক্রান্ত অনেক কাজ থাকে । যা আপনি অল্প জ্ঞান নিয়োগ করতে পারেন মনে রাখবেন এসব হচ্ছে গুগল নিয়ে কাজ ।এই গুগল কে বাদ দিয়ে আপনি অন্য সেক্টরে কাজ করেন না । একটু আধটু সমস্যা হতেই পারে কাজেই আমি সব সময় আপনাদের উপদেশ দিতে চাই । এটি আপনি চাইলে বিভিন্ন ব্লক পড়েই শিখে ফেলতে পারেন আমরা এসইও শেখার জন্য আমাদের সাইটে দেখতে পারেন আমাদের সাইট বিডিওয়েভ মেকার ডট কম।

এবার সিদ্ধান্ত আপনার, নিজেকে প্রশ্ন করুন, আপনি কি সত্যিই পারবেন ??? কাজ করতে যদি পারেন তাহলে জিজ্ঞেস করুন আপনি ঠিক কী কাজ শিখতে পারবেন ??? কোন কাজটি আপনার জন্য শ্রেয় হবে এরপর কাজ শিখুন ধীরে ধীরে একটু একটু করে আগান ধৈর্য হারাবেন না দেখবেন সফলতা পাবেন ইনশাল্লাহ।

কোথায় পাবো কাজ

দেখছেন  আমি কি বোকা। কাজ সম্পর্কে ধারনা দিলাম অথচ বলা হয়নি কোথায় পাবেন এই কাজ ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে পাবেন কাজ মনে প্রশ্ন আসতে পারে এই মার্কেটপ্লেস আবার কোথায় ?? না ভাই এই মারকেটপ্লেস আপনার ঘরেই আছে। শুধু কম্পিউটারে ইন্টারনেট এ গিয়ে নিচের ওয়েবসাইটে যান তাহলেই পাবেন । আসলে এগুলো হলো বিভিন্ন ওয়েবসাইট যেখানে আপনি কাজ পাবেন । আপনাকে কাজ দেয়ার জন্য অনেক ক্লায়েন্ট আছে । যেখানে আর কাজ করার জন্য অনেক ওয়ার্কার আছেন । সেখানে নিচে কিছু সেরা ফ্রিল্যান্সিং সাইটের লিস্ট দেয়া হল

Odesk.com

freelancer.com 

elance.com

উপরের সাইটগুলোতে গিয়ে ব্রাউজ ওয়ার্ক এ গেলেই দেখতে পারবেন কি কি কাজ আছে কাজ আছে। পুরো ফ্রিল্যান্সিং প্রসেস টি কিভাবে ঘটে তা নিয়ে ইনশাল্লাহ আমাদের পরবর্তী পোস্টে আলোচনা কর আলোচনা  করব।।

তো সে পর্বের আমন্ত্রন জানিয়ে আজকে এখানেই বিদায় নিচ্ছি। সবাই ভালো থাকবেন